Breaking News

ঘরে সাউন্ডবক্স বাজিয়ে স্ত্রীর গায়ে আ’গুন দিলো ইমাম

গাজীপুরের মাওয়া নতুন বাজার এলাকার ভাড়া বাসায় স্ত্রীর শরীরে কে’রোসিন ঢেলে পু’ড়িয়ে হ’ত্যাচেষ্টার অ’ভিযোগ উঠেছে শরিফ মাহমুদ নামে ইমামের বিরুদ্ধে।বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাতে গাজীপুরের শ্রীপুর থা’নায় ভুক্তভোগী তরুণীর বাবা বা’দী হয়ে একটি লিখিত অ’ভিযোগ দেন। ভুক্ত’ভোগী ত’রুণীর বাড়ি গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলায়। স্বামী মাওলানা শরিফ মাহমুদের সঙ্গে তিনি বয়রাসালায় ভাড়া বাসায় থাকতেন।

ভুক্তভোগীর পরিবার জানায়, পারিবারিকভাবে ২০১৯ সালের ১২ জুন গাইবান্ধা সদর উপজেলার বল্লমঝাড় এলাকায় মাওলানা শরিফ মাহমুদের সঙ্গে বি’য়ে হয় ওই ত’রুণীর। বিয়ের পর স্ত্রীকে নিয়ে শ্রীপুরে যান শরিফ। সেখানে স্থানীয় ইয়াকুব আলী জামে মসজিদে ইমামতি শুরু করেন তিনি।কিন্তু আর্থিক দৈন্যদশা ও প’রকীয়ায় জড়িয়ে শরিফ কিছুদিন ধরে স্ত্রীকে শা’রীরিক ও মা’নসিক নি’র্যাতন করে আসছিলেন। গত ১৮ সেপ্টেম্বর রাতে স্ত্রীর কাছে এক লাখ টাকা যৌ’তুক দাবি করেন শরিফ।

এ সময় টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে পরকীয়ার ঘটনা বলায় স্ত্রীকে তিনি মা’রধর শুরু করেন। এরপর রাত ৩টার দিকে উচ্চস্বরে সাউন্ডবক্সে ওয়াজ বাজিয়ে গা’য়ে কে’রোসিন ঢেলে আ’গুন ধরিয়ে দেয়া হয়। পরে ত’রুণীর চি’ৎকারে পাশের রুমের এক নারী এসে প্রতিবেশীদের সহায়তায় তাকে উ’দ্ধার করে।

ঘটনার রাতে মোবাইলে খবর পেয়ে গাইবান্ধা থেকে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে মে’য়েকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিকেল কলেজ হা’সপাতালে ভর্তি করান বাবা। বর্তমানে তিনি হাসপাতালের বা’র্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন।ভুক্তভোগী ত’রুণী বলেন, অন্য মেয়েদের সঙ্গে কথা বলতো স্বামী। সেগুলো আমি সহ্য করতে পারিনাই। অনেক মা’রধর করছে ওই রাতে। সেদিন খাটে শুইতেও দেয়নি। পরে মেঝেতে ঘুমাই। হুট করে ঘুম থেকে উঠে দেখি দাউদাউ করে আ’গুন জ্বলছে আর ওয়াজ বাজছে।

ভুক্তভোগীর বাবা বলেন, ‘টেকার জন্যে ছোলটাক (খুশি) আ’গুনত ফেলে মারবের চাচ্ছিল। বহুত টেকা দিছি এই দুই বছরে। তাও ছোলটেক মারডাং করতো সে (শরিফ)।’ গাজীপুরের শ্রীপুর থা’নার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইমাম হোসেন বলেন, বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) রাতে অ’ভিযোগ পেয়েছি। তদন্তের পর আ’ইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Check Also

শতবর্ষী বয়সী বৃদ্ধা মায়ের ঠাই হলো না উচ্চ শিক্ষিত ৬ ছেলে ২ মেয়ের ঘরে

ঢাকার ধামরাইয়ে শতবর্ষী বয়সী বৃদ্ধা মরিয়ম বেগমের ঠাই হয়নি উচ্চ শিক্ষিত ৬ ছেলে ২ মেয়ের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *