Breaking News

দেশের পুরুষদের টার্গেট করে এসব কাজ করেন রোজী

উম্মে ফাতেমা রোজী (৩৫) একজন অস্ট্রেলিয়ান প্রবাসী। গ্রামের বাড়ি ঝালকাঠি। মাঝে মধ্যে দেশে এসে কয়েকটি পরিবারের সঙ্গে সখ্যতা গড়ে তোলেন। আর এসব নেটওয়ার্কের মাধ্যমেই তিনি হাতিয়ে নেন লাখ লাখ টাকা। রোববার মালিবাগের সিআইডি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানানো হয়।

জানা গেছে, রোজী প্রথমে অস্ট্রেলিয়া থেকে অনলাইনে দেশের পুরুষদের টার্গেট করে প্রেমের জালে ফাঁসান। এরপর দেশে এসে তাকে বা তার পরিবারের সদস্যদের অস্ট্রেলিয়া নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দেন। পরে তার চক্রের সহযোগিতায় জাল ভিসা ও টিকিট তৈরি করে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিয়ে কেটে পড়েন।

তার এ কাজে সহযোগিতার জন্য দেশে রয়েছে একটি চক্র। এই চক্রের মাধ্যমে উচ্চবিত্তদের টার্গেট করে আত্মীয়ের ভিসায় অস্ট্রেলিয়া নিয়ে যাবে বলে প্রলোভন দেখান। সপরিবারে গেলে (স্বামী-স্ত্রী) ২৩ লাখ আর একা গেলে ১৮ লাখ বলে অফার দেওয়া হতো।

এ চক্রের দুজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সিআইডি)। গ্রেফতারকৃতরা হলেন- আশফাকুজ্জামান খন্দকার (২৬) ও মো. সাইমুন ইসলাম (২৬)। তবে চক্রের মূল হোতা রোজী অস্ট্রেলিয়া থাকায় তাকে গ্রেফতার করা সম্ভব হয়নি।

রোজী অস্ট্রেলিয়া ইমিগ্রেশন কনস্যূলার জেনারেল হিসেবে মিথ্যা পরিচয় দেন। এ ছাড়াও তিনি অস্ট্রেলিয়া প্রধানমন্ত্রী স্কট মরিসনের কাছ থেকে পুরস্কৃত হন ও পুরস্কারের ছবি ভুক্তভোগীদের দেখান। এতে ভুক্তভোগীরা বিশ্বাস করতে থাকেন। পরে ধাপে ধাপে কাগজপত্র ও ভিসার কথা বলে টাকা নিতে থাকেন।দীর্ঘদিন ধরে অস্ট্রেলিয়ান Relative Sponsor migration subclass (855) permanent residence জাল ভিসা প্রস্তুত করে বাংলাদেশি নিরীহ লোকদেরকে অস্ট্রেলিয়ায় পাঠানোর কথা বলে লাখ লাখ টাকা আত্মসাৎ করেছেন প্রবাসী উম্মে ফাতেমা রোজী।

Check Also

এম্বুলেন্সেই নিভে গেল মেধাবী ছাত্রী রোদেলার জীবন প্রদীপ

ঢাকার কুর্মিটোলা হাসপাতালে নেয়ার আগেই নিভে গেল মানিকগঞ্জ এস কে সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অষ্টম …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *